অস্ট্রেলিয়ায় শিশু নির্যাতন গোপনের দায়ে আর্চবিশপের দণ্ড

অস্ট্রেলিয়ায় শিশু নির্যাতন গোপনের দায়ে আর্চবিশপের দণ্ড

163
0
শিশুর ওপর যৌন নির্যাতন গোপন করার দায়ে বিশ্বের সবচেয়ে সিনিয়র ক্যাথলিক যাজক এবং অস্ট্রেলিয়ার সাবেক আর্চবিশপ ফিলিপ উইলসনকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। তবে নিজ বাড়িতে থেকে এ দণ্ড কাটাতে পারবেন তিনি।
মঙ্গলবার দেয়া রায়ে বলা হয়, কারা কর্তৃপক্ষ কর্তৃক দেয়া প্রতিবেদনের ভিত্তিতে স্বাস্থ্যগত দিক বিবেচনায় ফিলিপকে বাড়িতে থাকার অনুমতি দেয়া হয়েছে।
মঙ্গলবার থেকেই ৬৭ বছর বয়সী ফিলিপের দণ্ডভোগ শুরু হবে। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্যারোলে মুক্তি পেতে পারবেন তিনি।
অস্ট্রেলিয়ার এবিসি টিভি জানিয়েছে সম্ভবত বোনের বাড়িতে থেকে সাজা ভোগ করবেন ফিলিপ।

১৯৭৬ সালে একজন যাজক দুই শিশুর ওপর যৌন নির্যাতন করলে বিষয়টি ফিলিপকে জানানো হয়েছিল। তবে তিনি ঘটনাটি পুলিশকে জানাননি। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠার পর চলতি বছরের জুলাইয়ে অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডের আর্চবিশপের পদ থেকে পদত্যাগ করেন ফিলিপ। (সূত্রঃইত্তেফাক)

Facebook Comments

You may also like

অস্ট্রেলিয়ার সংসদে ক্ষমা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী 

কাউসার খান:অস্ট্রেলিয়ার  জাতীয় সংসদে শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার ও ক্ষতিগ্রস্থদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। আজ সোমবার দেশটির জাতীয় সংসদে জাতীয় শিশু সপ্তাহ ২০১৮ উপলক্ষে দেয়া  ভাষণে তিনি শিশু যৌন নির্যাতনে ভুক্তভোগীদের কাছে এক্ষমাপ্রার্থনা করেন। এ সময় শিশু যৌন নির্যাতনের শত শত ভুক্তভোগী সংসদে উপস্থিত ছিলেন। ভাষণের সময় সংসদে পিনপতন মৌনতা বিরাজ করে। পরে ভুক্তভোগীদের সংগে দেখা করতে আজ সংসদের  সকল অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়। ২০১২ সালে এই ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি রয়েল কমিশন দ্বারা অনুমোদন করেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী জুলিয়া গিলার্ড। তিনিও দর্শক সারিতে উপস্থিত ছিলেন আজ। প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের শুরুতেই মরিসন বলেন, ‘আজ অস্ট্রেলিয়া একটি আঘাতের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে, একটি ঘৃণা যা দীর্ঘদিন দৃষ্টি সীমানার বাইরে লুকিয়ে ছিল।’ ব্যথিত কণ্ঠস্বরে মরিসন বলতে শুরু করেন, ‘আজ আমরা মুখোমুখি হবো, নীরব কণ্ঠস্বরের, অন্ধকারের চাপা কান্নার।অস্বীকৃত অশ্রুর। অদৃশ্য দুঃখের অত্যাচারের।’   ভাষণের এক পর্যায়ে মরিসন লজ্জায় মাথা নত করে বলেন, ‘ যে শিশুদের আমরা নিরাপদে  রাখতে ব্যর্থ হয়েছি, আমি তাঁদের কাছে ক্ষমা চাইছি। যে বাবা মায়ের বিশ্বাস আমরা ভেঙে দিয়েছি, যারা সেই টুকরো টুকরো বিশ্বাসগুলোএকসাথে করতে সংগ্রাম করছেন, তাঁদের কাছে আমি ক্ষমা চাচ্ছি।’ শিশু যৌন নির্যাতনে বেঁচে যাওয়াদের উদ্দেশ্য করে মরিসন বলেন, ‘আমি তোমাদের বিশ্বাস করি ভালোবাসি, এই দেশ তোমাদের বিশ্বাস করে ভালোবাসে।’