অস্ট্রেলিয়ার সংসদে ক্ষমা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী 

অস্ট্রেলিয়ার সংসদে ক্ষমা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী 

0
প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন জাতীয় ক্ষমা প্রার্থনা চেয়ে ভাষণ দিচ্ছেন ছবিঃ সংগৃহীত

কাউসার খান:অস্ট্রেলিয়ার  জাতীয় সংসদে শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার ও ক্ষতিগ্রস্থদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। আজ সোমবার দেশটির জাতীয় সংসদে জাতীয় শিশু সপ্তাহ ২০১৮ উপলক্ষে দেয়া  ভাষণে তিনি শিশু যৌন নির্যাতনে ভুক্তভোগীদের কাছে এক্ষমাপ্রার্থনা করেন। এ সময় শিশু যৌন নির্যাতনের শত শত ভুক্তভোগী সংসদে উপস্থিত ছিলেন। ভাষণের সময় সংসদে পিনপতন মৌনতা বিরাজ করে। পরে ভুক্তভোগীদের সংগে দেখা করতে আজ সংসদের  সকল অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়।

২০১২ সালে এই ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি রয়েল কমিশন দ্বারা অনুমোদন করেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী জুলিয়া গিলার্ড। তিনিও দর্শক সারিতে উপস্থিত ছিলেন আজ।

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের শুরুতেই মরিসন বলেন, ‘আজ অস্ট্রেলিয়া একটি আঘাতের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে, একটি ঘৃণা যা দীর্ঘদিন দৃষ্টি সীমানার বাইরে লুকিয়ে ছিল।’ ব্যথিত কণ্ঠস্বরে মরিসন বলতে শুরু করেন, ‘আজ আমরা মুখোমুখি হবো, নীরব কণ্ঠস্বরের, অন্ধকারের চাপা কান্নার।অস্বীকৃত অশ্রুর। অদৃশ্য দুঃখের অত্যাচারের।’   ভাষণের এক পর্যায়ে মরিসন লজ্জায় মাথা নত করে বলেন, ‘ যে শিশুদের আমরা নিরাপদে  রাখতে ব্যর্থ হয়েছি, আমি তাঁদের কাছে ক্ষমা চাইছি। যে বাবা মায়ের বিশ্বাস আমরা ভেঙে দিয়েছি, যারা সেই টুকরো টুকরো বিশ্বাসগুলোএকসাথে করতে সংগ্রাম করছেন, তাঁদের কাছে আমি ক্ষমা চাচ্ছি।’ শিশু যৌন নির্যাতনে বেঁচে যাওয়াদের উদ্দেশ্য করে মরিসন বলেন, ‘আমি তোমাদের বিশ্বাস করি ভালোবাসি, এই দেশ তোমাদের বিশ্বাস করে ভালোবাসে।’

অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ার বিরোধীদল লেবার পার্টির প্রধান নেতা বিল শর্টেনও ক্ষমা চাইলেন শিশু নির্যাতনের শিকার সকলের কাছে। বললেন, ‘আমরা ক্ষমা চাচ্ছি প্রতিটি নষ্ট হয়ে যাওয়া শৈশবের জন্য, আমরা ক্ষমা চাচ্ছি প্রতিটি হারিয়ে যাওয়া জীবনের জন্য, আমরা ক্ষমা চাচ্ছিপ্রতিটি বিশ্বাসঘাতকতার জন্য, প্রতিটি ক্ষমতার অপব্যবহারের জন্য। আমরা ক্ষমা চাচ্ছি দশকের পর দশক ধরে চলতে পাওয়া আঘাতের জন্য, যার ঘা কোনোদিনই শুকাবে না। আমরা ক্ষমা চাচ্ছি সাহায্যের জন্য চিৎকার করে কাঁদা প্রতিটি কণ্ঠস্বরের জন্য। আমরা ক্ষমা চাচ্ছিপ্রতিটি অপরাধের জন্য যার তদন্ত হয় নি কিংবা অপরাধী চিহ্নিত হয়নি।

শিশু যৌন নির্যাতন অপরাধের শাস্তি ব্যবস্থা আরও দ্রুত কার্যকর করতে আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী মরিসন। বলেন, ‘ব্যবস্থা গ্রহণ ছাড়া ক্ষমা চাওয়া একটা সাদা কাগজের মতোই। আজ আমরা শিশুদের বিশ্বাস করা ও তাঁদের কথা শোনার মতো একটি দেশ গড়ার প্রতিজ্ঞা করছি।’

Facebook Comments

You may also like

সিডনির বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত চিকিৎসক শরীফ ফাত্তাহকে ১৬ বছর ৬ মাসের জন্য দণ্ডিত

২ আগস্ট শুক্রবার , সিডনির নিউ সাউথ ওয়েলস