অস্ট্রেলিয়ায় জুড়ে ভয়াবহ শৈত্য প্রবাহ

অস্ট্রেলিয়ায় জুড়ে ভয়াবহ শৈত্য প্রবাহ

0

গত শুক্রবার ৯ আগস্ট বিকেল থেকে সারা অস্ট্রেলিয়া জুড়ে শুরু হয়েছে ভয়াবহ শৈত্য প্রবাহ। এই শৈত্য প্রবাহ আরও দুইদিন স্থায়ী হবে বলে আবহাওয়া বিশারদরা জানান। এই বিষয়ে কিছু এলাকায় স্মার্ট ফোনে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের বার্তাও আসতে থাকে গত শুক্রবার সকাল থেকেই।
গতকাল বিকেল থেকে ঘন্টায় সর্বোচ্চ ১১৫ কিঃমিঃ গতিতে ক্ষনে ক্ষনে আঘাত হানছে অস্ট্রেলিয়া জুড়ে। তার ফলশ্রুতিতে গতকাল থেকে নিউ সাউথ ওয়েলসের স্নোয়ি মাউন্টেনে অতিরিক্ত তুষার পড়েছে। ঐ অঞ্চলে তুষারপাতের কারণে অনেক গাড়ি দুর্ঘটনায় পরে এবং রাস্তা তিন ঘন্টা বন্ধ ছিল। ব্লু মাউন্টেন এলাকায় ১৪ সেন্টিমিটার পর্যন্ত তুষারপাতের কারণে নিউ সাউথ ওয়েলসের রাজ্য সরকার জরুরী অবস্থা জারি করে রাস্তায় আটকে থাকা যাত্রীদের নিরাপদ গন্তব্যে পোঁছানোর ব্যবস্থা করেন। বাতাসের গতির তীব্রতার কারণে সকাল থেকেই সিডনি থেকে ৩৮টির মত প্লেন যাত্রা বাতিল অথবা পরিবর্তিত হয়েছে এবং মেলবোর্নে প্রায় ৫ টি যাত্রা বাতিল করা হয়েছে।

সিডনির বাসিন্দা আপেল ফোন কোম্পানিতে কর্মরত আই টি বিশেষজ্ঞ মোহাম্মদ কবির একটি সেমিনারে গতকাল অংশগ্রহণ শেষে রাতেই আবার সিডনি ফিরে আসেন। তার যাত্রার ভয়াবহ অভিজ্ঞতা জানিয়ে রাতে ফেসবুকে প্লেন থেকেই সকলকে দোয়া চেয়ে এক লাইনের একটি স্টাট্যাস দিয়েছিলেন। তার অভিজ্ঞতা জানানোর জন্য ফোন করলে তিনি বলেন, “গতকাল সিডনি থেকে দুইবার বিমান যাত্রা পিছানোর পর অবশেষে মেলবোর্নে সেমিনারে পোঁছে কাজ শেষে রাত ৮:৫৫ মিঃ এ কুয়ান্টাস এয়ারলাইনসের প্লেনে করে ৫৫ মিঃ পর সিডনি নামার কথা। প্লেনটি যখন সিডনির নিকটে উল্লগঙ্গ এর আকাশে আসে তখনই প্লেনটি প্রচণ্ড বাতাসের কবলে পড়লে পাইলট যাত্রীদের সান্তনা দিয়ে প্লেনটির গতিপথ ক্যানবেরার দিয়ে নিয়ে যান এবং দুইঘন্টা বাতাসের সাথে যুদ্ধ করে অবশেষে রাত ১১ টায় বাতাসকে উপেক্ষা করে মহান সৃষ্টিকর্তার কৃপায় বিমানটি নিরাপদে নামতে সক্ষম হয়। ”
এছাড়াও তীব্র গতির বাতাসের কারণে বিভিন্ন স্থানে গাছ পালা পড়ে রাস্তা বন্ধ হয়ে যায় এবং বাড়িঘরের ক্ষয়ক্ষতি সাধন করে। এই পরিস্থিতি সোমবার পর্যন্ত থাকবে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়।

Facebook Comments

You may also like

শেখ হাসিনাকে যে কারনে তারা হত্যা করতে চেয়েছে ২১ আগষ্টে

ফজলুল বারী:দুই হাজার চার সালের ২১ আগষ্টের জনসভার