টনি এবোটের ব্যক্তিগত তথ্য নিয়ে হ্যাকারের সতর্কতা

টনি এবোটের ব্যক্তিগত তথ্য নিয়ে হ্যাকারের সতর্কতা

0

অনলাইনে আপনি কতোটা নিরাপদ একটু ভেবে দেখেন। গত মার্চে যখন করোনা ভাইরাসের কারণে বিমান প্রায় বিশ্বজুড়ে অচল তখন অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী টনি এবোট জাপানের টোকিও বিমান বন্দর থেকে ফ্লাই করার আগে তার টিকিটের একটা ছবি ইনস্টাগ্রাম এ পোস্ট করে লিখেন ”
“A big thank you to all the team on QF26 from Tokyo. Hope to see you flying again soon!,”m
যা কিনা পরবর্তীতে মুছে ফেলা হয়।

সমস্যা বেঁধে যায় যখন টনি এবোটের পোস্টটি নজর কাড়ে অস্ট্রেলিয়ান আই টি বিশেষজ্ঞ এলেক্স হোপের। গ্রুপ চ্যাটে এই পোস্ট দেখে তার এক বন্ধু তাকে পোস্টটি দিয়ে জিজ্ঞেস করেছিলো, “তুমি কি তার তথ্য হ্যাক করতে পারবে?”

হোপ চ্যালেঞ্জ টি গ্রহণ করলো সাথে সাথে এবং নিজেকে স্ব ঘোষিত হ্যাকার বলে পরিচিত করতো বন্ধুদের সাথে। মাত্র ৪৫ মিনিট সময় ব্যয় করে টিকিটের ছাপা তথ্য দিয়ে কোয়ান্টাস এয়ারলাইন্সের ওয়েবসাইটের এইচটিএমএল(html) কোড থেকে টনি এবোটের পাসপোর্ট নাম্বার, ফোন নাম্বার এবং এয়ারলাইন্সের কিছু কোডেড মেসেজ বের করে ফেলেন।
তারপরে তিনি তথ্যটি শুধুই তার কাছেই রেখে টনি এবোটের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন কয়েকমাস ধরে। পরে অবশ্য টনি এবোটের সাথে কথা বলে নিশ্চিত হন তার পাওয়া সব তথ্য সঠিক।
টনি অবাক বিশ্বয় নিয়ে হোপকে কিছু প্রশ্ন করেছিলেন, ” আই টি টেকনোলজি কিভাবে শিখা যায়? ”
“বিমানের টিকেট বুকিং করতে হলে কতটুকু তথ্যদেয়া নিরাপদ? ”
“বিমানের টিকিট থেকে পাসপোর্ট নাম্বার বের করা যায় কিন্তু বাস টিকিট থেকেও কি বের করা যায় ? ”

জবাবে হোপ বলেছিলেন, ” বিমানের বোর্ডিং পাসে পাসওয়ার্ড সংরক্ষিত থাকে কিন্তু বাসের টিকিটে থাকে না। তাছাড়া বিমানের ওয়েব সাইটে যেকোনো জায়গা থেকে এক্সেস করা যায় পাসওয়ার্ড জানা থাকলে!”

এই বিষয়ে কোয়ান্টাসের আইটি ডিপার্টমেন্ট জানিয়েছে হোপ যখন জানতে চেয়েছিলেন তাঁদের সিস্টেম ব্রেক নিয়ে। জবাবে কোয়ান্টাস বলেছিলো, তাঁদের সিস্টেমে কিছু ভুল ছিলো যেটা গত জুলাই মাসে ঠিক করা হয়েছে।

হোপ কেনো এই বিষয়ে সরব হয়েছেন, সেটার কারণ একটাই। তিনি চান ব্যাক্তিগত তথ্য সোশ্যাল মিডিয়াতে না পোস্ট করতে নিরাপত্তার জন্য। অন্যতম হলো, ব্যাংক ডিটেলস, ইমেইল, ফোন নাম্বার, জন্মদিন, বাসস্থান এবং ব্যক্তিগত অন্যান্য তথ্যাদি। হ্যাকার অপেক্ষা করে থাকে সেই তথ্যের জন্য। একবার হ্যাকারের কাছে পড়লে অনলাইন খুবই ভয়ংকর এবং বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে।

Facebook Comments

You may also like

অস্ট্রেলিয়াতে প্রথম বাংলাদেশী দত্তক শিশু  তাজমানিয়ার নামকরা শেফ ওয়াজি উল্লাহ স্পিবি।

১৯৭০ সালে  মহাপলয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় “ভোলা” বাংলাদেশে আঘাত করে