কুইন্সল্যান্ডের দম্পতি বাড়িতে অনাকাঙ্খিত অতিথিদের আনাগোনা

কুইন্সল্যান্ডের দম্পতি বাড়িতে অনাকাঙ্খিত অতিথিদের আনাগোনা

0
বসন্তে কুইন্সল্যান্ডের তাপমাত্রা বাড়তে থাকে ধীরে ধীরে আর বাড়তে থাকে অনাকাঙ্খিত অতিথিদের আনাগোনা। গত শুক্রবার কুইন্সল্যান্ডের নুসা-হিন্টারল্যান্ড এলাকার পমোনায় এক দম্পতির বাসা থেকে ফোন পেয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন স্ন্যাক ক্যাচার মিস্টার হান্টলি।
কারণ হিসেবে ঐ দম্পতি বলেছিলেন, “তাদের ছাদের মধ্যে গত কয়েকদিন যাবৎ বেশ শব্দ হচ্ছে, আমরা আমাদের ছাদ থেকে কয়েক সপ্তাহ আগে একটা কার্পেট পাইথন (অজগর )নামতে দেখে সিদ্ধান্ত নেই, ছাদে যেন কোন ছিদ্র না থাকে, সেই মতো সব ছিদ্র বন্দ করে দেই। আমাদের মনে হচ্ছে ছাদে বুঝি আরেকটা পাইথন আছে। “
মিস্টার হান্টলি ওই বাসায় আসার আগেই ২.৫ মিটার অজগরটি ছাদের জিপ্ৰক ভেঙ্গে নেমে এক পর্যায়ে ধীরে ধীরে নিকটের জঙ্গলে চলে গিয়েছে । ঐ সময় বাসার মালিকরা শুধু চেয়ে চেয়ে দেখছিলো। তারমানে গত কয়েক সপ্তাহে অজগরটি বের হওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছিল। তারপরে তিনি তাদের কাছ থেকে ছবিগুলো নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেন।
হান্টলি মজা করে বলেন আমি অজগর নিয়ে বিচলিত না মোটেও , কিন্তু ছাদের যে ক্ষতিটা করে গেলো !!
তিনি আরও বলেন, কোন সাপই অতিরিক্ত তাপমাত্রা পছন্দ করে না। তাই ছাদের তাপমাত্রা যখন ৩৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস হয়ে যায় তখন কোন কিছুই ছাদে থাকতে পারে না। তাই যারা তাদের ছাদকে সাপমুক্ত রাখতে চান,গ্রীষ্মকালের মাঝামাঝি সময়ে ছাদের সমস্ত ছিদ্র বন্দ করে ফেলবেন কারণ ঐ সময় তারা ছাদ ত্যাগ করে।
সূত্রঃ ডেইলি মেইল

Facebook Comments

You may also like

‘দ্য হারমোনিক মাইনর’ শিরোনামে সরোদ শিল্পী তানিম এবং নৃত্যশিল্পী অর্পিতার যুগলবন্দী

‘দ্য হারমোনিক মাইনর’ শিরোনাম দিয়ে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলীয়