গানে গানে জোস্নার সিজন ৩ আগামী ১০ স্পেটেম্বর

গানে গানে জোস্নার সিজন ৩ আগামী ১০ স্পেটেম্বর

সিডনিতে অতি পরিচিত গানের শিল্পী আতিক হেলাল ও আরফিনা মিতা সুরেলা কণ্ঠ নিয়ে গানে গানে জোস্নার সিজন ৩ অনুষ্ঠানটি করতে যাচ্ছেন আগামী ১০ সেপ্টেম্বর সিডনির ব্যাংকসটাউনের ব্রায়ান ব্রাউন থিয়েটারে সন্ধ্যা ৬:৩০ মিনিটে। ১০ ই সেপ্টেম্বররের অনুষ্ঠানে আতিক হেলাল ও আরফিন মিতার সাথে যন্ত্র সংগীতে বাজাবেন বাংলাদেশ থেকে রাজীব ,পাভেল,শাহরিয়ার , ইমন এবং সিডনির ভারতীয় কমিউনিটি থেকে অভিজিৎ ড্যান ও ভীড় থাকছেন।

গানে গানে জোস্নার সিজন ১ অনুষ্ঠিত হয়েছিল একই থিয়েটারে ১২ জানুয়ারি ২০১৯ সালে এবং হয়েছিল এবং দর্শকশ্রোতাদের অনুরোধে দ্বিতীয় অনুষ্ঠানটি হয়েছিল একই বছর ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সালে।

আশির দশকে আতিক হেলাল বাংলাদেশের ব্যান্ড সংগীতের অন্যতম ব্যান্ড “উইন্ডস” এর ভোকালিস্ট হিসেবে সঙ্গীত জগতে আত্মপ্রকাশ করেন “উইন্ডস” বামবা’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের মধ্যে ছিল একটি । এরপর থেকে এখন অবধি গান গেয়ে চলছেন। শুধু গানের শিল্পী হিসেবেই আতিক হেলাল পরিচিত নন, ভোকালের পাশাপাশি গানের বিভিন্ন শিল্পীদের গানের কম্পোজিশনে যথেষ্ট ভূমিকা রেখে চলেছেন। ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত আতিক হেলাল বাংলাদেশে জাতিসংঘের একটি অধিদপ্তরে একজন কর্মকতা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে সিডনিতে নিউ সাউথ ওয়েলসের ডিপার্টমেন্ট অফ কমিউনিটি এন্ড জাস্টিসে একজন কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন।

আরফিনা মিতার গানের খড়ি শৈশব থেকে প্রখ্যাত শিল্পী মাহমুদুন্নবীর কাছে। মিতা শৈশব থেকে এই পর্যন্ত বাংলাদেশের টিভিতে অনেক সংগীতানুষ্ঠানে এবং নাটকে গান গেয়েছেন। ১৯৯৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে থিতু হওয়ার পর থেকে এখনো গানের চর্চা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে সিডনির সংগীত জগতে মিতা খুবই পরিচিত একজন শিল্পী।

‘গানে গানে জোস্না’ শুরুর আগে বাংলাদেশ আইডল নামে একটি গানের সংগঠন গড়ে তুলেছিলেন আতিক হেলাল ও আরফিনা মিতা ২০০৪ সালে । তাদের প্রথম আয়োজন ছিল সিডনিতে শিল্পীদের মধ্য থেকে নামকরা শিল্পীদের নির্বাচন করা। ৮৭ জন প্রতিযোগী সেই প্রতিযোগিতায় অংশ নেন এবং এদের মধ্যে যুগ্মভাবে প্রথম হয়েছিলেন সুশান্ত গুন্ যিনি বর্তমানে কৃষ্টি ব্যান্ডের প্রধান ভোকাল এবং আরেকজন অন্তরা সিনহা যিনি অস্ট্রেলিয়ায় কলকাতা বাঙালি কমিউনিটির সেরা সংগীত শিপ্লীদের একজন।

এছাড়াও সিডনিতে বাংলাদেশের সেরা শিল্পীদের নিয়ে সিডনিতে অনেকগুলো অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন এবং তাদের সাথে যৌথভাবে গান করেন। সেরা শিল্পীদের মধ্যে অন্যতম প্রখ্যাত সংগীত শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন,ফেরদৌস ওয়াহিদ এবং বাংলাদেশে জন্ম নেয়া কলকাতা প্রবাসী প্রখ্যাত সংগীত শিল্পী মিতালি মুখার্জি। ধারাবাহিকভাবে সিডনিতে বাংলাদেশে থেকে আরো কয়েকজন প্রখ্যাত সংগীত শিল্পীদের নিয়ে গানের অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। তাদের মধ্যে অন্যতম কয়েকজনের হলেন সামিনা চৌধুরী , ফাহমিদা নবী, পার্থ বড়ুয়া , বাপ্পা মজুমদার, এস এই টুটুল , রিংকু এবং হাবিব। বাংলাদেশের অন্যতম সংগীত শিল্পী তপন চৌধুরীর সাথে আরেফিনা মিতা দৈত সংগীত পরিবেশনা করেন সিডনিতে। এছাড়াও আবৃত্তিকার শিমুল মুস্তাফার সাথেও আরেফিনা মিতা কবিতা ও গানের মিশ্রনে দৈত পরিবেশনা করেন।

আতিক হেলালকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, ‘গানে গানে জোস্না -৩’ এর পরের পরিকল্পনা কি ?
জবাবে উনি বলেন, ” এইতো অনেকদিন ধরে গান করলাম এখন নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের গড়ে তোলার দিকে একটু মন দিতে চাই এবং নতুন প্রজন্মকে অস্ট্রেলিয়ায় বাংলা গানে সাহায্য করতে চাই মন দিয়ে ”

আরফিনা মিতাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল ,”আপনারা সংগীত শিল্পী হয়েও বাংলাদেশ থেকে বার বার নামকরা শিল্পীদের সিডনিতে কেনো নিয়ে এসেছেন?”

প্রশ্নের জবাবে মিতা বলেন ,” অস্ট্রেলিয়ায় বাঙালিদেরও তো বাংলার প্রখ্যাত শিল্পীদের গান শুনতে ইচ্ছে করে, আর এই যে গান শোনার ক্ষুধা আমাদের সিডনিবাসীদের , সেটা মিটানোর জন্যই এই চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি। তাছাড়া সংগীত অঙ্গনে আমাদের একটু যোগাযোগ থাকাতে শিল্পীদের সিডনিতে এনে অনুষ্ঠান করতেও কাজটি সহজ হয়েছিল প্রতিবারই ”

আতিক হেলাল ও আরফিনা মিতা দুজনেই আসন্ন ১০ সেপ্টেম্বরের সংগীত সন্ধ্যা নিয়ে ব্যস্ত এবং অনুষ্ঠানটি সফল করার জন্য সিডনির দর্শক শ্রোতাদের অনুষ্ঠানে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

‘গানে গানে জোস্নার সিজন ৩’ অনুষ্ঠানের বেশিরভাগ টিকিট ইতিমধ্যে বিক্রি হয়ে গিয়েছে। এখনো যারা টিকিট কিনেননি তাদের টিকিটের জন্য https://krazytickets.com ওয়েব এড্রেস থেকে ক্লিক করে কিনতে পারেন।

You may also like

বাংলা পাঠশালা পরিবার দিবস ২০২২ পালিত

গত ১৩ নভেম্বর সিডনির বারডিয়া উইকেন্ড বাংলা স্কুলে