সিডনির ইঙ্গেলবার্নে অনুষ্ঠিত হলো শারদীয় এক্সিবিশন ২০২২

সিডনির ইঙ্গেলবার্নে অনুষ্ঠিত হলো শারদীয় এক্সিবিশন ২০২২

গত ১১ সেপ্টেম্বর রোববার আসন্ন দূর্গাপূজা উপলক্ষ্যে সিডনির ইঙ্গেলবার্নে অনুষ্ঠিত হলো শারদীয় এক্সিবিশন। সিডনি বাঙ্গালী কমিউনিটির তত্ত্বাবধানে অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত বাঙ্গালীদের জন্য “বিদেশের মাটিতে দেশীয় সংষ্কৃতি,ঐতিহ্য ও উৎসবে মুখরিত থাকুক বাঙ্গালীরা ” এই শ্লোগান নিয়ে শারদীয় এক্সিবিশনের যাত্রা শুরু হলো । এই সংগঠনের সাথে রয়েছে সকল ধর্ম ও কৃষ্টির ৫৫ জন বাঙ্গালী নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে গঠিত ‘সিডনি বাঙ্গালী বুটিক ক্লাব’ ।
শারদীয় এক্সিবিশনে সহায়তায় ছিল আনন্দধারা। সংগঠনটির কর্ণধার সেলিমা বেগমের পরিচালনায় অনুষ্ঠাটির উদ্বোধনে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ সিডনিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের কনসাল জেনারেল মোঃ শাখাওয়াৎ হোসেন , বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রাক্তন ফেডারেল এমপি বাংলাদেশিদের অন্যতম বন্ধু লরি ফার্গাসন , স্টেট্ এম পি অনুলাক চানটিভঙ্গ এবং সফল রিয়াল এস্টেট ব্যবসায়ী মাহমুদ হোসেন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কমিউনিটির সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।
সেলিমা বেগম বলেন,”২০১২ সাল থেকে সংগঠনটি বাংলা ভাষা ও বাংলা সংষ্কৃতি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এই সংগঠনের সাথে যুক্ত আছে নতুন প্রজন্মের একটি মেধাবী দল ‘ কিশোর সংঘ’। ২০১৯ থেকে নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে গঠিত হয় বুটিক ক্লাব।” জনাব শাখাওয়াৎ হোসেন বলেন , “বাঙ্গালীদের উৎসবকে আনন্দময় করে তুলতে অস্ট্রেলিয়ায় এই ধরণের একটি উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। ”
লরি ফার্গাসন বলেন,”অস্ট্রেলিয়ার মাল্টি কালচারাল সমাজে সবাই যার যার ধর্ম, সাংস্কৃতিক চর্চা নির্ভিঙ্গে করতে পারে এবং অস্ট্রেলিয়ার সরকার সব সময় ভিন্ন ভাষা, ধর্ম ও সংষ্কৃতিক চর্চায় পাশে থাকে যেমনটি অতীতে ছিল। ” অনুলাক চানটিভঙ্গ বলেন ,” আমি সত্যিই অহংকারবোধ করি যারা এই সংগঠনের মাধ্যমে আমার নির্বাচনী এলাকাকে সারা সিডনির সব অস্ট্রেলিয়ান বাঙ্গালীদের কাছে তুলে ধরেছেন এবং আমি সব সময় এই ধরণের উদ্যোগের পাশে ছিলাম এবং থাকবো। ” এছাড়াও অস্ট্রেলিয়ায় নারীদের সফলতা ও প্রতিবন্ধকতা নিয়ে কথা বলে আসমা আহমেদ ও সাকিনা আক্তার।
অতিথিদের দেশীয় তৈরী উপহার তুলে দেন বুটিক ক্লাবের পক্ষ থেকে সেলিনা আক্তার। এই এক্সিবিশনে শোভা পায় বাংলাদেশ সহ উপমহাদেশীয় প্রায় সব ধরনের হাল ফ্যাশান ও ডিজাইনার স্পেশাল শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, পাজামা-পাঞ্জাবী, ধুতি , ফতুয়া, শাল, বাচ্চাদের পোষাক,নাগরা ,সিঁদুর ,আলতা সহ নানা ধরনের গয়না। অস্ট্রেলিয়ায় দেশীয় পোষাক,রঙ, ডিজাইন ও ফ্যাশনের জনপ্রিয়তা গড়ে তোলার জন্য এই আয়োজন গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা রাখে। এছাড়াও ,অস্ট্রেলিয়াতে বসবাসরত বাঙ্গালীরা দেশীয় আদলে শারদীয় উৎসবের সুযোগ করে দেয়া এক্সিবিশনের মূখ্য উদ্দেশ্য। এই প্রদর্শিনীতে সিডনির বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসেন শত শত বাঙ্গালীরা , আর এক্সিবিশন প্রাঙ্গণ থাকে মুখরিত এবং উৎসবমুখর ।

You may also like

বাংলা পাঠশালা পরিবার দিবস ২০২২ পালিত

গত ১৩ নভেম্বর সিডনির বারডিয়া উইকেন্ড বাংলা স্কুলে