অ্যাশফিল্ড পার্কে সিডনির একুশে একাডেমীর একুশ উৎযাপন

অ্যাশফিল্ড পার্কে সিডনির একুশে একাডেমীর একুশ উৎযাপন

0

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি অ্যাশফিল্ড পার্কে সিডনির একুশে একাডেমীর একুশ উৎযাপন করা হয়। এটি ছিলো সিডনিতে একুশে একাডেমীর ২২তম একুশে বইমেলা এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। আনুমানিক সকাল ৯:২০ মিনিটের দিকে প্রভাতফেরীর শুরু হয়। সংগঠনের সকল সদস্যসহ এই প্রভাতফেরীতে অংশগ্রহণ করে সিডনির প্রায় ২৩ টি সংঠনের নেতা কর্মী ও সর্বসাধারণ। “আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারী ” গান গেয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা স্তম্ভে সিডনির বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুল দেয়া হয়।

সিডনির একুশে একাডেমীর একুশ উৎযাপন ও বই মেলার আয়োজন সত্যিই মনে হবে আপনি বুঝি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চত্ত্বরের বাংলা একাডেমীর বই মেলায় হাঁটছেন , কথা বলছেন প্রিয় মানুষজনদের সাথে , ঝালমুড়ি, পিয়াজু , চা এবং সাথে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান দেখছেন। বিদেশের মাটিতে জন্ম নেয়া ছেলে মেয়েগুলো কি দারুন গান, কবিতা ও নাচ পরিবেশন করলো , যে কারো মনে হবে আমরা বুঝি বাংলাদেশেই আছি, এটা অ্যাশফিল্ড পার্কে না।
ছোট ছোট বাচ্চাদের বাংলার উচ্চারণ এবং বাংলা শিক্ষার যে আয়োজন লালন করছে তা প্রশংসনীয়।

আকাশটা একটু মেঘলা ছিল বটে , কিন্তু থামিয়ে রাখতে পারেনি সিডনির বিভিন্ন প্রান্তের বাঙ্গালীদের। হাজারো বাঙালীদের এক মিলনমেলা যেখানে ছিলো ভাষা ও জন্মভূমির কথা গানে, নাচে , কবিতায় ও সুরে।

একুশে একাডেমী মেলার মূল আকর্ষণ ছিলো নানা রকম বইয়ের সমাবেশ । মুক্তমঞ্চ প্রকাশন, প্রশান্তিকা বইঘর, পিদিম পাঠাগার, মেরুদণ্ড, আনন্দধারা, তিতাস, প্রজন্ম সহ নানা নামের বইয়ের দোকান ছিলো।

Facebook Comments

You may also like

লেবাননের যুদ্ধকালীন বাংলাদেশি

ফজলুল বারী: ফেসবুক যে আমাদের কত সম্পর্ক ফিরিয়ে দেয়!