বাংলাদেশ কনস্যুলেট সিডনিতে ঈদ পূনর্মিলনী ও পহেলা বৈশাখ উৎযাপন

বাংলাদেশ কনস্যুলেট সিডনিতে ঈদ পূনর্মিলনী ও পহেলা বৈশাখ উৎযাপন

গত শনিবার বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল সিডনির চ্যাটসউডের আবাসিক ভবনে ছোট পরিসরে ঈদ পূনর্মিলনী ও পহেলা বৈশাখ উৎযাপন করা হয়। সিডনির কিছু আমন্ত্রিত অতিথিদের নিয়ে সম্পূর্ণ ঘরোয়া আমেজেই অনুষ্ঠানটি করা হয়েছিল। নানা ধরণের পিঠা ,নাড়ু, চিড়ার মোয়া, চটপটি ও কয়েক ধরণের ভর্তা দিয়ে আমন্ত্রিত অতিথিদের আপ্যায়ন করা করা হয়। আমন্ত্রিত অতিথিদের স্বাগত জানান সিডনির বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল খন্দকার মাসুদুল আলম ও তার স্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপিকা রাবেয়া সুলতানা।

অনুষ্ঠানে ভারতীয় দূতাবাসের সিডনিস্থ কনস্যুলেট জেনারেল মানিষ গুপ্তা , সহধর্মিনী নিমিশা গুপ্তা সহ কিছু অস্ট্রেলিয়ান এবং সিডনির কিছু বাংলাদেশী পরিচিত মুখ উপস্থিত ছিলেন।
চমৎকার আবহাওয়া থাকাতে বাড়ির উঠানে প্রথম নানা ধরণের বৈশাখী সাজ সজ্জা লক্ষণীয় ছিল। মধ্যাহ্ন ভোজের পরে একটি গুছানো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন ছিল যেখানে ঈদ ও বৈশাখ নিয়ে সমবেত কণ্ঠে গান , একক নৃত্য , কবিতা আবৃত্তি ও গান পরিবেশন করেন উপস্থিত শিল্পীরা। উল্লেখ্য, সেখানে ভারতীয় দূতাবাসের সিডনিস্থ কনস্যুলেট জেনারেলের সহধর্মিনী নিমিশা গুপ্তাও একটি কবিতা আবৃত্তি করেন উৎসব নিয়ে।
বৈকালিক চা পর্বে শেষ করে উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানটির সমাপ্তি টানেন কনস্যুলেট জেনারেল খন্দকার মাসুদুল আলম। বাংলাদেশী অস্ট্রেলিয়ান এবং অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত বাংলাদেশী নাগরিকদের সুবিধা দেয়ার জন্য গত ২০১৯ সাথে সিডনিতে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশ কনস্যুলেট অফিস এবং প্রথম কনস্যুলেট জেনারেল হিসেবে বাংলাদেশ সরকার নিয়োগ দেন খন্দকার মাসুদুল আলমকে। উনার মেয়াদ শেষ হবে আগামী ১৪ই মে ২০২২ এ। তিনি সিডনিতে বসবাসরত বাংলাদেশী কমিউনিটির সাথে অত্যন্ত সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তোলার পাশাপাশি বাংলাদেশের সংষ্কৃতিকে তুলে ধরার জন্য প্রতিটি রাস্ট্রীয় ও দেশী অনুষ্ঠানকে পালন করে আসছেন।

You may also like

ডক্টর মুহাম্মদ ইউনুস মিথ্যা বলছেন

ফজলুল বারী:পদ্মা সেতুর উদ্বোধন পর্ব থেকে ডক্টর মুহাম্মদ