অবশেষে ৪.৭ মিটার লম্বা দানব কুমির ধরা পড়ল নর্দান টেরিটোরিরে

অবশেষে ৪.৭ মিটার লম্বা দানব কুমির ধরা পড়ল নর্দান টেরিটোরিরে

ছবিঃ সেভেন নিউজ, ৪.৭ মিটার লম্বা ৬০০ কিলো দানব কুমিরটি

৬০০ কিলোগ্রামের দানব কুমির ধরা পড়ল অস্ট্রেলিয়ায়৷ কুমিরটিকে প্রথম দেখতে পাওয়া যায় ২০১০ সালে৷ তারপর আট বছর তাকে ধরার বহু প্রচেষ্টা করা হয়৷ কিন্তু তাকে ধরা যায়নি৷ দীর্ঘদিন পরে অবশেষে জালে ধরা পড়ল সেই বৃহদাকায় কুমির৷

ওই লবণ জলের কুমিরের ওজন ৬০০ কিলোগ্রাম৷ আট বছর ধরে তার খোঁজে তল্লাশি চালানো হয় বিভিন্ন জায়গায়৷ শেষমেশ মঙ্গলবার তাকে খাঁচাবন্দি করা সম্ভব হয়েছে৷ সরকারি তরফে তার ধরা পড়ার খবর প্রচার পেতেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন সকলে৷ ৪.৭ মিটার লম্বা মানে ১৫.৪ ফুট৷ রাক্ষুসে ওই কুমিরকে ধরার জন্য ফাঁদ পাতা হয় উত্তরের প্রান্তিক শহর ক্যাথেরাইনে৷ ২০১০ সাল থেকেই অবশ্য তাকে দেখতে পাওয়ার পরই ফাঁদ পাতা হয়৷ কুমিরটির বয়স প্রায় ৬০ বছর বলে মনে করা হচ্ছে৷
বন দফতরের অফিসার জন বুরকে এক সংবাদ মাধ্যমকে জানান ” আমরা এটাকে অনেক নামে ডাকি৷ কারণ একে ধরতে বহু প্রচেষ্টা চালাতে হয়েছে৷” তিনি আরও জানান, ” এটিকে ধরা রোমাঞ্চের থেকে কিছু কম নয়৷ এর আকারটা একবার দেখুন৷ সেটা প্রশংসার যোগ্য৷ তারপর এর বয়স৷ এসব দেখে এর প্রতি একটা সম্মান তৈরি হয়৷” উত্তরের এলাকার দায়িত্বে থাকা বন্যপ্রাণী অভিযানের প্রধান ট্রেসি ডুলডিজ জানিয়েছেন, কুমিরটিকে সাধারণ মানুষের থেকে আলাদা করে একটি কুমিরের খামারে রাখা হয়েছে৷ তিনি জানান, “আজ পর্যন্ত ক্যাথেরিন নদী থেকে ধরা পড়া কুমিররে মধ্যে সব থেকে বড় কুমির এটি৷” প্রতি বছর বন্যপ্রানী অভিযানের দল প্রায় ২৫০ টির মত কুমির ধরে৷ প্রধানত যারা সমস্যা তৈরি করে সেসব কুমিরকেই ধরা হয়৷

যদিও লবণাক্ত জলের কুমিরের বিষয়টি অস্ট্রেলিয়ার মানুষের কাছে খুবই সাধারণ৷ এরা বছরে কম করে দুজন মানুষকে মেরে ফেলে৷ যবে থেকে কুমিরকে সে দেশে সংরক্ষিত প্রাণী বলে ঘোষণা করা হয়েছে তার পর থেকেই কুমিরের সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে৷ ১৯৭০ এ কুমিরকে সংরক্ষিত প্রাণী হিসেবে ঘোষণা করা হয়৷ গত বছর এক বৃদ্ধাকে কুমির মেরে ফেলে৷ তার পর থেকেই এদের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা শুরু হয়৷(সূত্র কলকাতা ২৪X৭)

You may also like

ডক্টর মুহাম্মদ ইউনুস মিথ্যা বলছেন

ফজলুল বারী:পদ্মা সেতুর উদ্বোধন পর্ব থেকে ডক্টর মুহাম্মদ