সিডনিতে বিজয় দিবস ২০২০ উৎযাপন

সিডনিতে বিজয় দিবস ২০২০ উৎযাপন

0

গত ১৬ ডিসেম্বর বুধবার সন্ধ্যায় অস্ট্রেলিয়ার বাণিজ্য নগরী এবং বাঙালিদের ঘনবসতিপূর্ণ শহর সিডনির মিন্টুর বিডি কমিউনিটি হাবে ‘এসো মেতে উঠি বিজয়ের উল্লাসে’ স্লোগান নিয়ে উৎযাপিত হয়েছে বিজয়ের ৪৯ তম বছর। অনুষ্ঠানটির আয়োজক ছিলেন ‘সিডনি বাঙালী কমিউনিটি’
করোনা ভাইরাসের কারণে সিডনি তথা সারা অস্ট্রেলিয়াতে নিষেধাজ্ঞা কিছুটা শিথিল করায় সরকারি বিধিনিষেধ মেনেই এবারের অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন করা হয় ।

সেলিমা বেগমের সঞ্চালনা ও সার্বিক পরিচালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সিডনির বিশিষ্ঠ সংগীত শিল্পী আরেফিনা  মিতা।
বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতির সাথে সংযুক্ত রাখতে অস্ট্রেলিয়ার বুকে বেড়ে উঠা নতুন প্রজন্মদের নিয়ে গড়ে উঠা বাঙালী শিশু কিশোরদের সংগঠন ‘কিশোর সংঘের’ পরিবেশনায় বিজয় উৎসব অনুষ্ঠানটি মুখরিত ছিলো ।

বিজয় দিবসকে বরণ করতে তাদের পরিবেশনায় ছিল মুক্তিযুদ্ধ ও দেশাত্ববোধক গান,নাচ ও আবৃত্তি। তারা একক গান, আবৃত্তি, নৃত্য ছাড়াও পরিবেশন করে দলগতভাবে গণসংগীত ও দেশাত্মবোধক গান। লাল-সবুজের দেশীয় সজ্জায় তাদের পরিবেশনা সবার মন ছুয়ে যায়।এই দলে একক ও দলীয় গানে ছিল সারা চৌধুরী, সেহরিশ সাইফ, রায়া খাঁন,রেহনুমা আহমদ, রিডা হক,সুবাহ কবির, সাইফান কবির, আনুভা আহমাদ, জাফরি আহমাদ, এ্যারিকা চৌধুরী, পৃথিবী তাজওয়ার, আরিবা জায়ানা,মাহিমা বিশ্বাস , ফাহমিদা পাঠান,মুনতাহার হক এবং নৃত্য পরিবেশন করে শারিকা চৌধুরী এবং কবিতা পাঠ করে পৃথিবী তাজওয়ার। মেধাবী কিশোর-কিশোরীদেরকে নিয়ে এই দলটির তত্ত্বাবধায়নে ছিলেন সীমা আহমেদ এবং সাংষ্কৃতিক সম্পাদক পূরবী পারমিতা বোস। তবলায় সহায়তা করেন সাকিনা আক্তার।

শিশুকিশোরদের অনুপ্রেরনা দিতে উপস্থিত কমিউনিটি নেতৃত্বের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট সিরাজুল হক। তিনি তার বক্তৃতায় বলেন,”অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে নতুন প্রজন্মের এই শিশুকিশোরদের মধ্যে বাংলাভাষা, বাংলা সংস্কৃতি , মুক্তিযোদ্ধের প্রতি তাদের শ্রদ্ধা এবং অনুভূতি আমাকে মুগ্ধ করে। আমি নতুন প্রজন্মের মাজে বাংলাদেশের পতাকার রঙের আদলে লাল সবুজের সাজসজ্জা এবং বাংলাদেশের প্রতি অগাধ ভালোবাসার বীজ বপনের জন্য সিডনি বাঙালি কমিউনিটির ভূয়সী প্রশংসা করেন। ”

অস্ট্রেলিয়া আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পিএস চুন্নু বলেন, ” এই প্রজন্মের বাংলায় দখল দেখে আমার মতো অনেকেই বিস্মিত হবে, এই শিশুদের জন্ম কি অস্ট্রেলিয়াতে না বাংলাদেশে ।”

বিশিষ্ট লেখক ও সাংবাদিক আকিদুল ইসলাম বলেন “দেশ ছেড়ে প্রবাসে এসে আমাদের প্রথম প্রজন্মের অনেকেই ভিনদেশি সংস্কৃতি আর নোংরামীকে জীবন যাপনের অংশ করে নিয়েছেন এবং সেগুলোকে অনেকে উৎসাহিতও করছেন l এমন এক দূষিত সময়ে যখন দেখি প্রবাসে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্ম বুকে ধারণ করেছে প্রিয় বাংলার সংস্কৃতি আর ঐতিহ্য তখন চোখ জুড়িয়ে যায় l মন ভরে যায় ভালোবাসার অনাবিল আনন্দে। ”

এছাড়াও বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশে ছাত্রলীগের ঢাকা মহানগরী সাবেক সভাপতি শফিকুল আলম শফিক এবং নতুন প্রজম্নের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিডনি বিডি হাবের সভাপতি এবং সাধারন সম্পাদক আবুল সরকার এবং আব্দুল খান রতন সহ সিডনির গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সাংবাদিক,সংগঠক, সাংস্কৃতিক শিল্পী গণ।

অনুষ্ঠানের শব্দ নিয়ন্ত্রন করেন হায়দার আলী। পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল বিডি হাব। সাজসজ্জায় সহায়তা করেন আব্দুল্লাহ আল মামুন । অনুষ্ঠানটির সার্বিক পরিচালনায় সহায়তা করেন সংগঠনের অর্থবিষয়ক সম্পাদক শাহ জামেল। দেশীয় খাবার আপ্যায়নে সহায়তা করে নওয়াব রেস্ট্রুরেন্ট। পোষাক সরবরাহে সর্বিক সহায়তায় ছিলেন বিলকিস খানম পাপড়ী।

সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের পরিসমাপ্তি হয়।

Facebook Comments

You may also like

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে একুশে একাডেমীর আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

মাতৃভাষায় বাংলা চর্চা ও তার ইতিহাসকে আগামী প্রজন্মের